মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৬ আশ্বিন ১৪২৭ ● ৩ সফল ১৪৪২
বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের হার ১১ দশমিক ৪ শতাংশ
নিজস্ব প্রতিবেদক, ৭১ সংবাদ ডট কম :
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 434

বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের হার ১১ দশমিক ৪ শতাংশ

বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের হার ১১ দশমিক ৪ শতাংশ

নানা উদ্যোগ ও বিশেষ সুবিধা দেয়ার পরও খেলাপি ঋণের হার কমানো যাচ্ছে না। বাংলাদেশে যে পরিমাণে খেলাপি ঋণ রয়েছে তা দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি। বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের হার ১১ দশমিক ৪ শতাংশ।

সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) খেলাপি ঋণ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাতে দেখা গেছে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যাংকগুলোর বিতরণ করা ঋণের পরিমাণ ১০ লাখ ১১ হাজার ৮২৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯৪ হাজার ৩৩১ কোটি টাকাই খেলাপি হয়ে গেছে।

মূলত গত বছরের পুনঃতফসিল সুবিধা দেয়ায় প্রথমবারের মতো বেসরকারি ব্যাংকগুলোর তুলনায় এবার সরকারি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ কমেছে। তবে পুনঃতফসিল সুবিধা এখনও চলমান রয়েছে।

এক বছর আগে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়ার সময়ই আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছিলেন, খেলাপি ঋণ আর এক টাকাও বাড়তে দেবেন না তিনি। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাংক খাতের প্রধান সমস্যা খেলাপি ঋণ না কমে উল্টো বাড়তে থাকে। তখন একের পর এক পদক্ষেপ নেওয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে।

গত ৬ মাসে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ কমলেও তা আশানুরূপ নয়। গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রায়ত্ত ছয় ব্যাংকের খেলাপি ঋণের স্থিতি ছিল ৪৩ হাজার ৩১৩ কোটি টাকা। 

আর ২০১৮ সাল শেষে যেখানে মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৯৩ হাজার ৯১১ কোটি টাকা। ২০১৯ সাল শেষে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৪ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। অর্থাৎ ১ বছরে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৪২০ কোটি টাকা। 

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) বলছে, প্রকৃত অর্থে বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের পরিমাণ আরও অনেক বেশি।

সম্প্রতি প্রকাশিত বিশ্বব্যাংকের ‘গ্লোবাল ইকোনমিক প্রসপেক্টস’ শীর্ষক প্রতিবেদন থেকে জানা গেল, ২০১৯ সালের প্রাক্কলিত হিসাব অনুযায়ী দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশেই খেলাপি ঋণের হার সবচেয়ে বেশি। ১১ দশমিক ৪ শতাংশ। এরপর দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে ভুটান ও আফগানিস্তান, যাদের খেলাপি ঋণের হার যথাক্রমে ১০ দশমিক ৯ ও ১০ দশমিক ৮ শতাংশ।

প্রতিবেদনে অবশ্য বলা হয়েছে, শুধু বাংলাদেশ নয়, পুরো দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনৈতিক অবস্থাই খারাপ। গত ছয় মাসে অবস্থা খারাপ হয়েছে। দেশগুলোর আর্থিক খাত এখন চ্যালেঞ্জের মুখে। যে কারণে বিনিয়োগকারী ও ভোক্তাদের আস্থা কমে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণ এশিয়ায় ব্যক্তিপর্যায়ের ভোগ ও বিনিয়োগ কমছে।

বিশ্বব্যাংকের ধারণা, দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতিতে ঝুঁকি আরও বাড়বে। ঝুঁকির মূল কারণগুলো হচ্ছে- আর্থিক খাতের দুরবস্থা, ভূরাজনৈতিক উত্তেজনা ও সংস্কারের ধীরগতি। ভারত ও পাকিস্তানের সাম্প্রতিক উত্তেজনা কমে এলেও তা যদি আবারও বাড়ে, তাহলে এই অঞ্চলের বিনিয়োগ ব্যাহত হবে।
৭১সংবাদ ডট কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
কেন্দ্রীয় ব্যাংক বন্ড বাজার নিয়ে দুশ্চিন্তায়
পুঁজিবাজারে ওয়ালটন শেয়ারের লেনদেন শুরু ২৩ সেপ্টেম্বর
জাতিসংঘের ৭৫তম চলমান অধিবেশনে করোনা ভ্যাকসিন ও রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনা হবে
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অ্যান্টিজেন টেস্টের অনুমতি দিল
জাতিসংঘের ভার্চুয়াল বৈঠকে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী
দুর্গাপুরে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার
প্রায় ৫০ হাজার বিনিয়োগকারী মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে লেনদেন করেন যা প্রতিদিন লেনদেনের বাজার মূলধন এর ১০%।
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
এবার ফেঁসে যাচ্ছেন অবৈধ টাকা শিকারী একে এম সাহেদ রেজা, প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও বর্তমান পরিচালক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক
বগুড়ার শাজাহানপুরে মাস্ক,হ্যান্ডস্যানিটাইজার,সাবান ও করোনা ভাইরাসের সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ
ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি
অভিনেতা কেএস ফিরোজ ইন্তেকাল করেছেন
মাত্র ৩৫ দিনের এক শিশু করোনাকে জয় করেছে।
বেগম খালেদা জিয়ার ১৩তম কারামুক্তি দিবসে রাজশাহী মহানগর যুবদলের মিলাদ ও দোয়া মাহফিল
মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪১ জনের মৃত্যু
Chief Advisor: A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ৭১সংবাদ, ২০১৭
প্রধান কার্যালয় : ৫৩, মডার্ন ম্যানশন (১৪তলা), মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০
বার্তাকক্ষ : +৮৮-০২-৯৫৭৩১৭১, ০১৬৭৭-২১৯৮৮০, ০১৮৫৫-৫২৫৫৩৫
ই-মেইল :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com