শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ ৩ বৈশাখ ১৪২৮ ● ৩ রমজান ১৪৪২
গত এক দশকে বাংলাদেশে ইলিশের উৎপাদন প্রায় তিন গুণ হয়েছে : মৎস্য অধিদফতর
নিজস্ব প্রতিবেদক, ৭১ সংবাদ ডট কম :
প্রকাশ: বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬:০৩ পিএম আপডেট: ১৬.০৯.২০২০ ৬:০৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 120

 গত এক দশকে বাংলাদেশে ইলিশের উৎপাদন প্রায় তিন গুণ হয়েছে : মৎস্য অধিদফতর

গত এক দশকে বাংলাদেশে ইলিশের উৎপাদন প্রায় তিন গুণ হয়েছে : মৎস্য অধিদফতর

বাংলাদেশে এবছরে বর্ষা মৌসুমে ইলিশ মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে বাজারে ইলিশের দাম তুলনামূলকভাবে বেশ কমে গেছে। ইলিশের বংশবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে এবং ইলিশ যেন তার জীবনচক্র সম্পন্ন করতে পারে, তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপের কারণেই গত কয়েকবছরে ধারাবাহিকভাবে ইলিশের উৎপাদন বেড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


এবছরের ২০শে মে থেকে ২৩শে জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা ছিল জেলেদের ওপর। দীর্ঘ বিরতির পর মাছ ধরা শুরু হলে বিপুল পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়তে থাকে জেলেদের জালে। সেই ধারাবাহিকতায় বাজারে ইলিশের যোগান বাড়ার সাথে সাথে দামও তুলনামূলকভাবে কমতে থাকে। গত কয়েকমাস ধরে বাংলাদেশের প্রায় সব জায়গাতেই গত কয়েক বছরের তুলনায় কম দামে ইলিশ পাওয়া গেছে।


মৎস্য অধিদফতরের হিসাব অনুযায়ী, গত এক দশকে বাংলাদেশে ইলিশের উৎপাদন প্রায় তিন গুণ হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ইলিশ গবেষক ড. আনিসুর রহমান ধারণা করছেন যে, ইলিশ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে গত কয়েকবছর নেয়া পদক্ষেপগুলো আগামীতেও কার্যকরভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে এবং দামও কম থাকবে।


কতদিন কম থাকবে ইলিশের দাম? বাংলাদেশে সাধারণত বর্ষাকালকে ইলিশের মৌসুম হিসেবে মনে করা হয়। অন্যান্য বছরের বর্ষাকালের তুলনায় এবছর ইলিশের উৎপাদন ও আহরণ বেশি হওয়ায় মাছের দামও অন্যান্য বছরের চেয়ে তুলনামূলকভাবে কম ছিল। ইলিশ গবেষক আনিসুর রহমান মনে করছেন ইলিশের এই কম দাম পুরো অক্টোবর মাস পর্যন্ত উপভোগ করতে পারবে মানুষ।


"সেপ্টেম্বর-অক্টোবর ইলিশের জন্য ''হাই টাইম'' হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই সময় সাগর থেকে মোহনা বেয়ে ডিম পাড়া ও খাদ্য গ্রহণের উদ্দেশ্যে বড় নদীর দিকে যাওয়া আসা করে ইলিশ। কাজেই এই সময়ে ইলিশ ধরাও পড়ে অনেক।" তবে অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশের দাম কমের দিকে থাকলেও নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে ইলিশের দাম বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান মি. রহমান। "নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে শেষের দিকে ইলিশ কমে যায়। সে সময় ইলিশ কম ধরা পড়ে, তাই স্বাভাবিকভাবেই দাম বেড়ে যায়।"


ইলিশ ধরায় আবার নিষেধাজ্ঞা শুরু হবে কবে? বছরের বিভিন্ন সময়ে ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা জারি করে ইলিশের বংশবিস্তার, ডিম পাড়া ও প্রজননের সুবিধার্থে গত কয়েকবছরে বিভিন্ন ধরণের পদক্ষেপ নিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। গত কয়েকবছরের মত এবছরও অক্টোবরের মাঝামাঝি সময় থেকে অন্তত ২২ দিনের জন্য ইলিশ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে বলে জানান ড. আনিসুর রহমান।


"অক্টোবরের মাঝামাঝি সময় থেকে ইলিশ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে। প্রতিবারের মত একটি পূর্ণিমা ও একটি অমাবস্যা পড়বে এই সময়ের মধ্যে।" অমাবস্যা ও পূর্ণিমা শুরুর আগের দুইদিন এবং পরের তিনদিন এই সময়ে নদীতে ও নদীর মোহনায় পানির প্রবাহ বেশি থাকে, যে কারণে সে সময়ে সাগর থেকে মাছ বেশি আসে এবং মাছের চলাচলও এ সময় বেশি থাকে। মি. রহমান আশা প্রকাশ করেন ইলিশ সংরক্ষণে এ ধরণের পদক্ষেপ নেয়া অব্যাহত থাকলে এবং কার্যকরভাবে সেসব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা হলে ইলিশের উৎপাদন প্রতিবছর বৃদ্ধি পেতে থাকবে। সূত্র : বিবিসি
৭১সংবাদ ডট কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
প্রতি বছর করোনার টিকা নেয়ার প্রয়োজন হতে পারে : ফাইজারের সিইও
ভারতের তাজমহলে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন দক্ষিণ আফ্রিকার ডি ভিলিয়ার্স
করোনায় ভারতে একদিনে ২ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৩ জন আক্রান্ত
বাংলাদেশকে ভিসা দেবে না দক্ষিণ কোরিয়া
চার ট্রাক অনুমোদনহীন, মেয়াদোত্তীর্ণ ও ভেজাল টেস্ট কিট জব্দ করেছে র‌্যাব
বিএনপির দ্বিচারিতা বক্তব্য মানুষের ঘরের অবস্থানকে নিরুৎসাহিত করবে : ওবায়দুল কাদের
করোনায় আজ দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যু , ১০১ জন
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
লক্ষীপুরের বশিকপুরে সৌদি প্রবাসীর বসতঘরে ডাকাতি
দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে এবং আইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মানববন্ধন স্থগিত করেছি
এবার মামুনুলের তৃতীয় ‘প্রেমিকার’ সন্ধান
সাভারের পোশাক কারখানায় আগুন
হেফাজতে ইসলামের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে সরকার
কঠোর লকডাউনেও খোলা থাকবে পোশাক ও বস্ত্র কারখানা
‘ফিরোজা’ ভবনের সব বাসিন্দা করোনায় আক্রান্ত: চিকিৎসক
Chief Advisor: A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ৭১সংবাদ, ২০২১
Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com