বুধবার ১৬ জুন ২০২১ ২ আষাঢ় ১৪২৮ ● ৫ জিলক্বদ ১৪৪২
নদীর পারে আজ হাঁকডাক নেই!
নিজস্ব প্রতিবেদক, ৭১ সংবাদ ডট কম :
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১, ১১:১০ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 103

নদীর পারে আজ হাঁকডাক নেই!
মাইকেল মধুসূদনের 'কপোতাক্ষ নদ' কিংবা জীবনানন্দ দাশের 'রূপসী বাংলা' যার সবেই ছিল নদীকেন্দ্রিক। আবহমান কাল থেকে নদী, মাটি এবং মা বাংলার প্রাণের স্পন্দন ছিল। নদীকে কেন্দ্র করে হাজারো জনপদ গড়ে উঠে প্রাচীন সভ্যতায়। বহু কালব্যাপী বাংলার ইতিহাস - ঐতিহ্য সম্বলিত পদ্মা, মেঘনা, সুরমা, কর্ণফুলী, গোমতী, করতোয়া, ধলেশ্বরী , ডাকাতিয়া, যমুনাসহ ছোট - বড় শত শত নদী এদেশের বুকে ধারণ করে আছে। বাংলার মা এবং মাটির সাথে নদীকে এদেশের মানুষ তাদের আত্মার অস্তিত্বে মিশে নিয়েছেন। প্রাচীন বাংলার রাজদরবার সমূহ এককথায় নদীকে ঘিরে তাদের শাসনব্যবস্থা পরিচালনা করতো। নবাব  সলিমুল্লাহ, মোগল সম্রাট শায়েস্তা খাঁ, ঈসা খাঁ, কিংবা উপমহাদেশের একমাত্র মহিলা নবাব ফয়জুন্নেছা আমলও কিন্তু নদীকেন্দ্রিক বিদ্যমান ছিল। প্রজারা তাদের সহ সহ খাজনা আদায়ের জন্য নোঙর নিয়ে বের হতো ঘাট থেকে ঘাটে। প্রজারা বিকালের আগে সকল খাজনা আদায় করে সন্ধায় রাজদরবারে একত্রিত হতো। 

প্রাচীন জনপদে নদীকে ঘিরে গোটা ভারতবর্ষ শাসন হয়েছে। সময়ের পালাক্রমে আজকের আধুনিক সভ্যতা হারিয়ে ফেলেছে ইতিহাস - ঐতিহ্যের সে সোনালী অতীত। আজ নদীর সাথে সাথে সোনালী আশঁ পাঠের চাষটা হারিয়ে যেতে বসেছে। এপার বাংলা থেকে ওপার বাংলার একমাত্র যোগাযোগ ব্যবস্থা ছিলো নৌপথ। এমনকি ভিনদেশে যাওয়ার মতো ছিলো না কোনো দূরপাল্লার যানবাহন, নৌকা, স্টিমার, জাহাজে করে একদেশ থেকে অন্য দেশে পারি জমাতো বনিকেরা। বর্তমানকালে আমাদের নদী সমূহ দেখলে খুবই কষ্ট হয়। কত সুন্দর সাজানো ছিলো আমাদের নদীর প্রবাহমান স্রোতগুলো, যা আজ বিপন্ন। অবৈধভাবে নদী ভরাট করে মাফিয়ারা এদেশের মাঝে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সাথে আমাদের স্বাভাবিক জীবন প্রবাহ নিশ্চিহ্ন করে দিচ্ছে।প্রতিনিয়ত কেড়ে নিচ্ছে এক একটি জীবন্ত নদীকে। অবৈধ দখলদার সাথে আমাদের নদী রক্ষা কমিশনসহ সরকারের নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় যেন আজ অসহায়। মাঝে বিআইডব্লিউটিএর কার্যক্রমে খানিকটা আশার আলো জ্বালিয়ে আবারো থমকে যায় অগোচরে। আমাদের কিছু সামাজিক সংগঠন নদী বাঁচাও আন্দোলন কে সময়ের সাথে সাথে তীব্রভাবে মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছে। 

৭১সংবাদ ডট কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুরোদমে চলবে সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান
চীন-ইন্দোনেশিয়ায় পৃথক মাত্রার ভূ'মিকম্প
এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের চূড়ান্ত পর্বে সরাসরি খেলবে বাংলাদেশ
স্বামীকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ত্ব-হার স্ত্রীর সাবিকুন্নাহারের আকুতি
চলমান লকডাউন ১৫ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানের হয়েছে
দেশে করোনায় নতুন ৬০ জনের মৃত্যু
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ৩৭২টি কোম্পানির ৫৭ কোটি ৪৩ লক্ষ ১৩ হাজার ৯৮৬ টি শেয়ার হয়েছে
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
নৌকা'র মনোনয়ন প্রত্যাশী ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন সাদাব অন্তু
এসআই পদে জবির ১০৬ শিক্ষার্থীর নিয়োগ
কালিয়াকৈরে বন বিভাগের অবৈধ জমি দখল রোধ কল্পে বিশেষ সভা
বর্ষা-বরণ: এ কে সরকার শাওন
নেত্রকোনার হাওরাঞ্চলে জেলা প্রশাসকের মত-বিনিময় ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ
সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত
টাঙ্গাইলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ১০টি দোকানের মালামাল পুড়ে ছাই
Chief Advisor: A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ৭১সংবাদ, ২০২১
Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com