শুক্রবার ২৯ অক্টোবর ২০২১ ১৩ কার্তিক ১৪২৮ ● ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩
শিরোনাম: ● বাংলাদেশে ৫জি বাস্তবায়নে বিটিসিএল এর প্রস্তুতি শীর্ষক একটি দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত       ● ১৫ বছর ধরে বিশ্বের এক নম্বর টিভি ব্র্যান্ড স্যামসাং দেশের বাজারে নিয়ে এলো নিও কিউএলইডি ৮কে টিভি       ● শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ড মাস্টারস দাবা প্রতিযোগিতা-২০২১       ● টানা ৫ম বারের মতো ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিচ্ছে জেএমআই সিরিঞ্জ       ● করোনা মোকাবিলায় সরকারের সার্বক্ষণিক সঙ্গী জেএমআই গ্রুপ: ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো.আবদুর রাজ্জাক       ● প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভান্ডারে ইসলামী ব্যাংকের ২ লাখ কম্বল প্রদান       ● কবি মনজু খন্দকারের ৫৯ তম জন্মবার্ষিকী পালন      
প্যানোরোমা জাদুঘর স্থাপনে তুরস্কের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক, ৭১ সংবাদ ডট কম :
প্রকাশ: সোমবার, ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৪:১৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 112

প্যানোরোমা জাদুঘর স্থাপনে তুরস্কের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

প্যানোরোমা জাদুঘর স্থাপনে তুরস্কের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে মানুষকে জানাতে তুরস্কের প্যানোরোমা-১৪৫৩ এর আদলে একটি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর স্থাপনে তুরস্কের সহযোগিতা আশা করছে বাংলাদেশ।  তুরস্কের সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে সম্প্রতি দেয়া এক সাক্ষাতকারে  মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব খাজা মিয়া এই আশা প্রকাশ করেন। সম্প্রতি  তিনি (২৮ সেপ্টেম্বর  হতে ৫ অক্টোবর)    তুরস্ক সফরে এই সাক্ষাতকার দেন।  সচিব খাজা মিয়া বলেন,  সরকার বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী মানুষের কাছে তুলে ধরতে চায়। তিনি জানান, আমরা বিভিন্ন দেশের কাছ থেকে প্যানারোমার বিষয়ে  ধারণা নেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে আমরা তুরস্ক সফর করছি এবং অন্যান্য দেশ থেকে কিছু তথ্য এবং ভবনের নকশা সম্পর্কে ধারণা লাভ করছি। এ সফরে সচিব খাজা মিয়া তুরস্কের বিভিন্ন জাদুঘর পরিদর্শন করেন। বিশেষ করে তিনি ইস্তাম্বুলের ঐতিহাসিক জাদুঘর প্যানোরমা-১৪৫৩ জাদুঘর এবং আফিয়ন প্রদেশের ভিক্টোরি জাদুঘর পরিদর্শন করেন।  খাজা মিয়া প্যানোরোমা জাদুঘরের ৩৬০ ডিগ্রি থ্রি ডি পেইন্টিংস দেখে মুগ্ধ হন, যেখানে ১৪৫৩ সালে মেহমেদ কর্তৃক অটোম্যান সাম্রাজ্যের সেনাবাহিনী কর্তৃক ইস্তাম্বুল বিজয়ের দৃশ্য ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।  সচিব খাজা মিয়া বলেন,  ‌‌' দু’দেশেরই নিজস্ব ধারণা, দর্শন এবং সংস্কৃতি রয়েছে। তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমাদের অনেক মিলও রয়েছে। তিনি জানান, বাংলাদেশ এবং তুরস্ক বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার সম্পর্ক জোরদার এবং অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারে। প্যানোরমার আকারে জাদুঘর স্থাপনে আমরা কয়েকজন স্থপতি, প্রকৌশলী  এবং নকশা নেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। আমরা সরকার এবং আমার মন্ত্রীর কাছে তুরস্কের কাছ থেকে প্রযুক্তি, স্থপতি এবং নকশা নেয়ার যৌক্তিকতা তুলে ধরবো। '

খাজা মিয়া জানান, তুরস্কের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়াভুজ সেলিম কিরান এবং সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সাংস্কৃতিক সম্পদ এবং জাদুঘর অধিদপ্তরের প্রধান গোখান ইয়াজগি   জাদুঘর স্থাপনে ঢাকাকে আংকারা  সার্বিক সহযোগিতা করবে মর্মে মৌখিকভাবে  আশ্বস্ত করেছেন । খাজা মিয়া আরো জানান , বাংলাদেশকে যদি কোনো ব্যক্তি বা সংস্থা প্রযুক্তি বা আনুসঙ্গিক যন্ত্রপাতি দিয়ে সহযোগিতা করতে চায়, তাহলে তিনি এই প্রকল্পের বিষয়ে আরো গবেষণা করতে তাদেরকে বাংলাদেশে নেয়ার আন্তরিক চেষ্টা করবেন। বাংলাদেশ সরকার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের মেহেরপুর জেলায় প্যানোরোমা জাদুঘর স্থাপনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণার পর এই জেলায় ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠিত হয়েছিল। সচিব জানান, রাজধানী থেকে মেহেরপুরের দূরত্ব ২৫০ কিলোমিটার হওয়ায় তরুণ প্রজন্মের নিকট সহজ গন্তব্য উপহার দেওয়ার লক্ষ্যে ঢাকায় আরও একটি প্যানারোমা জাদুঘর স্থাপন করা হতে পারে। যদিও এখনো সেই ধরণের কোনো পরিকল্পনা নেই। খাজা মিয়া জানান, এখনো আনুষ্ঠানিক কোনো চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়নি। তবে তিনি আশা করেন যে, তুরস্কের সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তিনি যথাযথ সহযোগিতা পাবেন। 
 
 
বাংলাদেশ তুরস্কের সংগে দক্ষতা, অভিজ্ঞতা, অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা এবং শিক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বিনিময় করতে আগ্রহী। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের অধিক সংখ্যক বৃত্তি প্রদানের জন্য তুরস্ক কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন সচিব খাজা মিয়া। সচিব মনে করেন, তুরস্ক বাংলাদেশকে প্রযুক্তিগত উন্নত শিক্ষা উপকরণ এবং বিশ্বখ্যাত বুদ্ধিবৃত্তিক বই প্রদান করতে পারে। খাজা মিয়া বাংলাদেশ এবং তুরস্কের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক উষ্ণ সম্পর্ক সর্বোচ্চ পর্যায়ে রয়েছে বলে মনে করেন। সম্প্রতি বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা তুরস্ক সফর করেন। এর মধ্যে সেনাপ্রধান এবং নৌবাহিনী প্রধান রয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন মন্ত্রী এবং সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তুরস্ক সফর করেছেন। দুই দেশের ব্যবসা এবং প্রতিরক্ষা সেক্টরে সহযোগিতা বেড়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষ্যে চলতি বছরের শেষ দিকে ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য অনুষ্ঠানে তুরস্কের সংস্কৃতি এবং পর্যটন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দল সফরের কথা রয়েছে। তুরস্কের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ঢাকার অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন মর্মে সচিব আশা প্রকাশ করেন । 

সচিব খাজা মিয়া বলেন, রোহিঙ্গা সংকটে যে সকল দেশ প্রথম সাড়া দিয়েছিল আংকারা অন্যতম প্রধান। দেশটি এখনো  রোহিঙ্গাদের প্রবেশকে কেন্দ্র করে সংকটে বাংলাদেশকে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার হয়ে ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে তারা বাংলাদেশে আসা শুরু করে। বিভিন্ন ধরনের সংকটে বাংলাদেশকে সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে তুরস্ক। আমরাও একই কাজ করেছি। সচিব বলেন, ‌“আমি মনে করি, দুই দেশের সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে, পিছিয়ে পড়ার সুযোগ নেই।”
৭১সংবাদ ডট কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
বাংলাদেশে ৫জি বাস্তবায়নে বিটিসিএল এর প্রস্তুতি শীর্ষক একটি দিনব্যাপী কর্মশালা অনুষ্ঠিত
১৫ বছর ধরে বিশ্বের এক নম্বর টিভি ব্র্যান্ড স্যামসাং দেশের বাজারে নিয়ে এলো নিও কিউএলইডি ৮কে টিভি
শেখ রাসেল আন্তর্জাতিক গ্র্যান্ড মাস্টারস দাবা প্রতিযোগিতা-২০২১
টানা ৫ম বারের মতো ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিচ্ছে জেএমআই সিরিঞ্জ
করোনা মোকাবিলায় সরকারের সার্বক্ষণিক সঙ্গী জেএমআই গ্রুপ: ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো.আবদুর রাজ্জাক
প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ভান্ডারে ইসলামী ব্যাংকের ২ লাখ কম্বল প্রদান
কবি মনজু খন্দকারের ৫৯ তম জন্মবার্ষিকী পালন
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
"বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়ন ইন চায়না" (BSUC) এর কার্যনির্বাহী কমিটি ঘোষণাঃ সভাপতি- মাজহারুল, সাধারণ সম্পাদক - কামাল
জনপ্রিয়তার শীর্ষে ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদ প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন
চাপাইর ইউনিয়নে নৌকার টিকেট পেলেন লায়ন আহসান হাবীব
অসম্প্রদায়িক চেতনায় দেশ এগিয়ে যাচ্ছে
কালিয়াকৈরে অল্পের জন্য ট্রেন দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা
বিপজ্জনক রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের ব্যবস্থা নিন
ধর্মীয় সহিংসতা আমাদের জাতীয় লজ্জা .........আ স ম রব
Chief Advisor: A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ৭১সংবাদ, ২০২১
Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com