মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১২ মাঘ ১৪২৮
শিরোনাম: পটিয়ায় দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ       পটিয়ায় ছৈয়দ মোখলেছুর রহমান আল মাইজন্ডারীর বার্ষিক ওরশ সম্পন্ন       আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাওয়া রোগীদের ৮৫ শতাংশই টিকা নেননিঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী        দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১৮ জনের মৃত্যু       আ.লীগ বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেছে কেন, ব্যাখ্যা করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী       রাজশাহীতে সনেটো ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেল ২০০ পরিবার       ভূমধ্যসাগরে ঠাণ্ডায় ৭ বাংলাদেশির মৃত্যু      
রমজান আসতে এখনো আড়াই মাস বাকি, বাড়ছে পণ্যের দাম
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারি, ২০২২, ৩:৫১ পিএম আপডেট: ১১.০১.২০২২ ৪:১২ পিএম |

রমজান আসতে এখনো আড়াই মাস বাকি, বাড়ছে পণ্যের দাম

রমজান আসতে এখনো আড়াই মাস বাকি, বাড়ছে পণ্যের দাম

প্রতিবছরের মতো এবারও সেই পুরোনো সিন্ডিকেট রমজান ঘিরে সক্রিয় হয়ে উঠছে। ভোক্তার পকেট কাটতে নতুন ফাঁদ পেতেছে তারা। এবার রমজান শুরুর আড়াই মাস আগেই নীরবে পণ্যের দাম বাড়াতে শুরু করেছে, যাতে রোজায় পণ্যের দাম বেড়েছে এমন অভিযোগ না ওঠে। ফলে ভোক্তার এখন থেকেই বাজারে বেশকিছু পণ্য কিনতে বাড়তি টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে।

এদিকে রাজধানীর খুচরা বাজার ঘুরে ও বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সিন্ডিকেট সদস্যরা এবার রমজাননির্ভর পণ্যের পাশাপাশি অন্যকিছু পণ্যের দামও বাড়িয়েছে। ছোলা থেকে শুরু করে ডাল, ভোজ্য তেল, পেঁয়াজ ও মাংসের পাশাপাশি চাল, শুকনা মরিচ ও গুঁড়ো দুধের দামও বাড়ানো হয়েছে। বাড়তি দরে এসব পণ্য কিনতে এখন থেকেই ভোক্তার নাভিশ্বাস উঠেছে। ভোক্তাদের দাবি, এখন থেকেই সংশ্লিষ্টদের বাজারে নজরদারি বাড়াতে হবে। কঠোর মনিটরিংয়ের মাধ্যমে বাজার নিয়ন্ত্রণ এবং অনিয়ম পেলে সঙ্গে সঙ্গে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

রোববার সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)-এর তথ্য মতে, এক সপ্তাহ ও মাসের ব্যবধানে খুচরা বাজারে ১০ ধরনের নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। প্রতি কেজি ছোট দানা মসুর ডাল বিক্রি হচ্ছে সর্বোচ্চ ১২০ টাকা, এক মাস আগে বিক্রি হয় ১১০ টাকা। বড় দানার মসুর ডাল প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা, যা এক মাস আগে ছিল ৯০ টাকা। প্রতি কেজি মুগ বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা, এক মাস আগে বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকায়। খুচরা বাজারে প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন বিক্রি হচ্ছে ১৪৫-১৪৮ টাকা, এক মাস আগে বিক্রি হয়েছে ১৩৮-১৪৫ টাকা। প্রতি লিটার পাম অয়েল সুপার বিক্রি হয়েছে ১৪০ টাকা, এক মাস আগে বিক্রি হয় ১৩৫ টাকা। বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি ছোলা ৭৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান যুগান্তরকে বলেন, বরাবর দেখা গেছে ব্যবসায়ীরা রমজানে পণ্যের দাম খুব কম বাড়ায়। রমজান আসার আগেই তারা দাম বাড়িয়ে দেয়। এ কারণে মনিটরিংও আগেভাগেই করতে হবে। কঠোর তদারকির মাধ্যমে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি জানান, অযৌক্তিক মুনাফা করতে ব্যবসায়ীরা সময় ও সুযোগ বুঝে পণ্যের দাম বাড়ায়। এই প্রবণতা কারও জন্যই শুভ নয়। ভোক্তাদের উদ্দেশে গোলাম রহমান বলেন, রমজান ঘিরে ভোক্তাদেরও সচেতন হতে হবে। ১৫ দিনের পণ্য যাতে একদিনে না কেনেন, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এতে বাজারে পণ্যের ঘাটতি দেখা দেয়। আর ব্যবসায়ীরাও সুযোগ বুঝে পণ্যের দাম বাড়িয়ে দেন।

টিসিবির তথ্যমতে, রোববার দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে সর্বনিম্ন ৪০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ৩৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আমদানি করা পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে সর্বোচ্চ ৫০ টাকা, যা এক সপ্তাহ আগে ৪৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। আমদানি করা হলুদ মাসের ব্যবধানে কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ১৯০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতি কেজি আমদানি করা শুকনা মরিচ বিক্রি হয়েছে ৩৫০ টাকা, এক মাস আগে বিক্রি হয়েছে ২৮০ টাকা। প্রতি কেজি মোটা চাল বিক্রি হয়েছে ৫০ টাকা, যা এক মাস আগে ছিল ৪৮ টাকা। এছাড়া প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি ১৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে, যা এক মাস আগে ছিল ১৬০ টাকা। প্রতি কেজি খাসির মাংস বিক্রি হয়েছে ৯০০ টাকা, যা এক মাস আগে ৮৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে এমনিতেই মানুষের ক্রয়ক্ষমতা কমেছে। এরপর নিত্যপণ্যের দাম বাড়লে নিম্ন আয়ের মানুষের ওপর বাড়তি চাপ পড়বে। তিনি আরও বলেন, বাজার নজরদারির জন্য আমরা সব সময় বলে আসছি। কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছে না। কী কারণে দাম বাড়ছে, তা খতিয়ে দেখা উচিত। এক্ষেত্রে কারসাজির মাধ্যমে দাম বাড়ানো হলে অভিযুক্তদের খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, রমজান সামনে রেখে পণ্যের দাম সহনীয় রাখতে আগে থেকেই কাজ করা হচ্ছে। রমজানে যাতে মানুষের কষ্ট না হয়, সেজন্য সাশ্রয়ী দামে টিসিবির মাধ্যমে পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এছাড়া বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সরকারের একাধিক সংস্থা বাজার তদারকি করবে। পাশাপাশি জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার  বলেন, অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে নিয়মিত বাজার তদারকি করা হচ্ছে। রমজানকে টার্গেট করে এখন থেকেই মনিটরিং জোরদার করা হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বসে সবকিছু খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অনিয়ম পেলে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে। দরকার হলে প্রতিষ্ঠান সিলগালা করে দেওয়া হবে। কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।






আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
পটিয়ায় দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ
পটিয়ায় ছৈয়দ মোখলেছুর রহমান আল মাইজন্ডারীর বার্ষিক ওরশ সম্পন্ন
আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাওয়া রোগীদের ৮৫ শতাংশই টিকা নেননিঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী
দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১৮ জনের মৃত্যু
আ.লীগ বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ করেছে কেন, ব্যাখ্যা করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
রাজশাহীতে সনেটো ক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেল ২০০ পরিবার
ভূমধ্যসাগরে ঠাণ্ডায় ৭ বাংলাদেশির মৃত্যু
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় বাংলাদেশ ১৩তম অবস্থানে
ব্যাংকও চলবে অর্ধেক জনবলে
হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয় এর এমপিএইচ ডিগ্রিপ্রাপ্তদের সার্টিফিকেট প্রদান
স্যামসাং বাজারে আনলো এএমডি আরডিএনএ ২-ভিত্তিক এক্সক্লিপস জিপিইউ যুক্ত এক্সিনোস ২২০০
চোখের আরাম, সুরক্ষা ও রঙের স্পষ্টতার জন্য বৈশ্বিকভাবে শীর্ষস্থানীয় সার্টিফিকেশন ইনস্টিটিউটসমূহের স্বীকৃতি অর্জন করে নিয়েছে ২০২২ স্যামসাং কিউএলইডি ও লাইফস্টাইল টিভি
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ৩৮০ টি কোম্পানির ২৩ কোটি ৩৫ লক্ষ ৩৭ হাজার ০৯৬ টি শেয়ার
দেশীয় উদ্যোক্তারা বিদেশে সার কারখানা নির্মাণে বিনিয়োগ করতে পারবেনঃ প্রধানমন্ত্রী
Chief Advisor:
A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf

Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com