রোববার ৪ ডিসেম্বর ২০২২ ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
শিরোনাম: সিলেট নগরীতে জলাশয় ভরাট করে নির্মাণ হচ্ছে উচু উচু বিল্ডিং       আইসিএমএবি বেস্ট কর্পোরেট অ্যাওয়ার্ড পেল গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক       ‘১০ ডিসেম্বর চাল-ডাল নিয়ে কার্যালয়ে অবস্থান করবে বিএনপি, বিষয়টি দেখছি’       বিএইচবিএফসি ব্যবস্থাপক সম্মেলন অনুষ্ঠিত       আইপিও প্রক্রিয়ায় যে সকল আইনকানুন রয়েছে তা সকলের মেনে চলা উচিত       উন্নত পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রথম আঞ্চলিক অধিবেশন ঢাকায় অনুষ্ঠিত        ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বে ঢাকা দক্ষিণে আলোচনায় যারা      
এগিয়ে যাচ্ছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
ইবি প্রতিনিধি :
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর, ২০২২, ৮:৫৯ পিএম |

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে বড় সরকারি বিদ্যাপীঠ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। নানা চড়াই-উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে কালের অবিচল সাক্ষী হয়ে আজ প্রতিষ্ঠার ৪৪ বছরে পদার্পণ করেছে এই বিদ্যাপীঠটি। শত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে উচ্চশিক্ষার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে ১৭৫ একরের এই বিশ্ববিদ্যালয়টি।

নৈতিকতাসম্পন্ন ও দেশপ্রেমিক যোগ্য নাগরিক গড়ার লক্ষকে সামনে রেখে ১৯৭৭ সালে ওআইসি’র উদ্যোগে পবিত্র মক্কা নগরীতে অনুষ্ঠিত ‘প্রথম আন্তর্জাতিক ইসলামী শিক্ষা সম্মেলনে” এ বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। যা জন্মগত ভাবেই ‘আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়’।

১৯৮৮৫-৮৬ শিক্ষাবর্ষে দুটি অনুষদ যথাক্রমে শরীয়াহ অনুষদ (আল-কুরআন ওয়া-উলুমুল কুরআন ও উলুমুল তাওহীদ ওয়াদ দাওয়াহ বিভাগ) এবং মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ তার (হিসাব বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগ) মোট চারটি বিভাগ নিয়ে সর্বপ্রথম একাডেমিক কার্যক্রম চালু করা হয়। ১৯৮৬ সালের  ১৫ই মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে  চারটি বিভাগে ৩০০ ছাত্র ভর্তি করে ১৯৮৬ সালের ২৮শে জুন সম্মান শ্রেণীর প্রথম ক্লাস শুরু হয়।

অনেক চড়াই-উতরাই ও প্রতিকুলতার মধ্যেও বহুপথ পেরিয়ে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। কালের আবর্তে সৃষ্টি হয়েছে অনেক ইতিহাস-ঐতিহ্য। প্রতিষ্ঠার ৪৪ বছরে এসে বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টি ৮টি অনুষদ ও ৩৬টি বিভাগে উন্নীত হয়েছে। যেখানে প্রায় ১৭ হাজার ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়ন করছে। ৪০৩ জন শিক্ষক,  ৪৯৪ জন কর্মকর্তা, ১৩২ জন সহায়ক কর্মচারী ও ১৫৮ জন সাধারণ কর্মচারী বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রায় অবদান রেখে চলেছেন। শিক্ষা-গবেষণা, সংস্কৃতি-ক্রীড়াঙ্গনসহ প্রায় সকল ক্ষেত্রেই গুরুত্বপূর্ণ  অবস্থান নিশ্চিত করে দেশ প্রেমিক উন্নত জাতি গঠনে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করছে এ বিশ্ববিদ্যালয়টি।

দেশের অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো পঠন-পাঠন, শিক্ষা ও গবেষণা পরিচালিত হলেও এ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বতন্ত্র কিছু  বৈশিষ্ট রয়েছে যা দেশের অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো থেকে এটাকে অনন্য র্মযাদায় উন্নীত করেছে।

এখানে রয়েছে 'থিওলজি এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদ'। ইসলামী শিক্ষায় সর্বোচ্চ ডিগী অর্জনের জন্য এ অনুষদে রয়েছে আল কুরআন এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, দা‘ওয়াহ এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ ও আল-হাদীস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ।  যেসব বিভাগ শুধু বাংলাদেশে নয়, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার অন্য কোনো দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে নেই।

এছাড়া রয়েছে আইন অনুষদের অধীনে 'আল-ফিকহ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ' বিভাগ যার মাধ্যমে ইসলামী আইনশাস্ত্রে উচ্চতর পঠন ও গবেষণা করার সুযোগ রয়েছে।

এটি দেশের একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে “ইনস্টিটিউট অব ইসলামিক এ্যডুকশেন এন্ড রিসার্চ (IIER)” নামে রয়েছে স্বতন্ত্র ইনস্টিটিউট। যার মাধ্যমে ইসলামের বিভিন্ন  বিষয়ে উচ্চতর গবেষনা করার ব্যবস্থা রয়েছে।

এটি একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে  থিওলজি এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের তিনটি বিভাগ ব্যতিত অন্য বিভাগসমূহে 'ইসলামিক স্টাডিজ' নামে একটি ননক্রেডিট র্কোস রয়েছে যেখানে প্রতিটি ছাত্রকেই (মাদ্রাসা ব্যাকগ্রাউন্ড ও অমুসলিম ছাত্রদের জন্য নয়) পাশ করতে হয়। যদিও এক সময় এ কোর্সটি ২০০ নম্বরের মূল র্কোস হিসেবেই অর্ন্তভূক্ত ছিল।

সৌদি আরব সরকারের অর্থায়নে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে 'খাদেমুল হারামাইন বাদশাহ ফাহাদ বিন আব্দুল আজিজ' নামে সুবিশাল কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী। যেখানে ইসলামের বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চতর গবেষণার জন্য রয়েছে প্রচুর রিসার্স পেপার, বইপত্র ও সাময়িকী।

এছাড়া রয়েছে বিশাল গম্ভুজ সম্বলিত দৃষ্টিনন্দন কেন্দ্রীয় মসজিদ যা বাংলাদেশের অনিন্দ সুন্দর একটি মসজিদ হিসেবে যে কোনো মানুষেরই নজর কাড়তে সক্ষম।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে অবকাঠামো উন্নয়ন ও উচ্চতর শিক্ষা গবেষনার জন্য OIC, IDB ও সৌদি আরব, ইরাকসহ বিভিন্ন মুসলিম দেশ প্রচুর অর্থায়ন করেছে।

বর্তমান প্রশাসনের সুযোগ্য নেতৃত্বে এই বিশ্ববিদ্যালয়টি তার মৌলিকত্ব নিয়ে শিক্ষা, গবেষণা ও জ্ঞান বিজ্ঞানে আরো উন্নতি সাধন করে লক্ষ্যপানে এগিয়ে যাবে এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।






আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
সিলেট নগরীতে জলাশয় ভরাট করে নির্মাণ হচ্ছে উচু উচু বিল্ডিং
শ্রীবরদীতে ২০২২ সালে এস.এস.সি জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরন
কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক হলেন ছাত্রলীগ নেতা মাহিম
ইবিতে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় হ্যান্ডবল ও ভলিবল প্রতিযোগিতা শুরু
শ্রীবরদীতে জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীত বস্ত্র ও খাবার বিতরণ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সম্মেলনে পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাপ
ইসলামী ব্যাংকের ভবিষ্যৎ অত্যন্ত সম্ভাবনাপূর্ণ : মুনিরুল মওলা
ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্বে ঢাকা দক্ষিণে আলোচনায় যারা
উন্নত পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রথম আঞ্চলিক অধিবেশন ঢাকায় অনুষ্ঠিত
সিলেটের জৈন্তাপুর থেকে এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার
Chief Advisor:
A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf

Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com