সোমবার ১৫ এপ্রিল ২০২৪ ২ বৈশাখ ১৪৩১
শিরোনাম: সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের মাঝে ইফতার বিতরণ করল উইনসাম স্মাইল ফাউন্ডেশন       অসংক্রামক রোগে মৃত্যু বাড়ছে, মোকাবেলায় বাড়ছে না বরাদ্দ       ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ৩৩তম মিলিয়নিয়ার হলেন রাজশাহীর মাদ্রাসা শিক্ষক আমিনুল       জাপানের বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড সনি’র জেনুইন পণ্য এখন চট্টগ্রামে       এয়ার টিকিট ফ্রি পাওয়ার সুযোগ       ৪৪তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ১১৭৩২       দু'দেশের অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়ার বিষয়ে গুরুত্বারোপ      
নিউইয়র্ক মেয়রের বেফাঁস মন্তব্যে ইমিগ্রেশন কোয়ালিশনের ক্ষোভ
প্রকাশ: শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ৯:৫৪ এএম |

ইমা এলিস/ বাংলা প্রেস, নিউ ইয়র্ক: নিউ ইয়র্কে অভিবাসীদের জন্য আর একটি কক্ষও খালি নেই সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামসের এমন বেফাঁস মন্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ইমিগ্রান্ট ও রিফিউজি রাইটস গ্রুপসমূহের আমব্রেলা সংগঠন হিসেবে পরিচিত ‘দ্য নিউইয়র্ক ইমিগ্রেশন কোয়ালিশন’। গত ১৫ জানুয়ারি মেক্সিকো সীমান্তবর্তী শহর এল পাসো পরিদর্শনে গিয়ে নিউ ইয়র্ক সিটি মেয়র এরিক অ্যাডামর এ মন্তব্য করেন। এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস।


তিনি বলেন, রিপাবলিকান শাসিত শহর ফ্লোরিডা ও টেক্সাস থেকে বাস ভর্তি করে ডেমোক্র্যাট শাসিত এলাকাগুলোয় যে পরিমাণ অভিবাসী পাঠানো হচ্ছে,তাতে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে জনবহুল শহর নিউইয়র্কে একটি কক্ষও এখন খালি নেই।


টেক্সাস থেকে নিউইয়র্ক সিটিতে পাঠিয়ে দেওয়া ইমিগ্রান্টদের সমস্যা লাঘবে সিটি মেয়র তার দায়িত্ব পালনের চেয়ে যা বলছেন তা বিভ্রান্তিকর ও বাকসর্বস্ব বলে সমালোচনা করেছে ইমিগ্রান্ট ও রিফিউজি রাইটস গ্রুপসমূহের আমব্রেলা সংগঠন হিসেবে পরিচিত ‘দ্য নিউইয়র্ক ইমিগ্রেশন কোয়ালিশন’। সংগঠনের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মেয়র এরিক অ্যাডামসের সদ্য প্রকাশিত ২০২৪ অর্থবছরের প্রিলিমিনারি বাজেটে ইমিগ্রান্ট ও রিফিউজিদের সমস্যা লাঘবের তেমন কোনো ব্যবস্থাই রাখা হয়নি। ইমিগ্রান্টদের কল্যাণে সিটির দায়িত্ব সম্পর্কে তিনি এতদিন পর্যন্ত যা বলে এসেছেন, প্রিলিমিনারি বাজেট দেখে প্রমাণিত হয়েছে যে তাঁর বক্তব্য ফাঁকা বুলি ছাড়া আর কিছু ছিল না। তিনি তার কৃচ্ছতার বাজেটের কথা বলে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থীদের বলির পাঠায় পরিণত করছেন।


ইমিগ্রেশন কোয়ালিশন বলেছে যে, মেয়র এখন পর্যন্ত ইমিগ্রান্টদের জন্য আশ্রয়ের সংকট দূর করতে পারেননি। তিনি বলেছেন যে আর কোনো ইমিগ্রান্টকে স্থান দেওয়ার সুযোগ নিউইয়র্কের নেই। নবাগত ইমিগ্রান্টদের নিউইয়র্কে এসে পৌছার দীর্ঘকাল আগে থেকেই সিটিতে সাধ্যের মধ্যে আবাসের সংকট রয়েছে। ইমিগ্রান্টদের আগমণে তাদের স্থান সংকুলান করা সম্ভব নয় বলে মেয়রের বক্তব্য নিউইয়র্ক সিটির রাইট টু শেলটার ল’ এর পরিপন্থী। আইন অনুযায়ী সকল নিউইয়র্কবাসীর টেম্পোরারি শেলটারে স্থান পাওয়ার অধিকার রয়েছে। ইমিগ্রান্টরা আসায় সাময়িক আবাসের ওপর চাপ পড়েছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই। বেড়ে চলা ইমিগ্রান্ট প্রবেশের প্রেক্ষিতে নিউইয়র্কের ‘স্যাঙ্কুচুয়্যারি সিটি’র ভাবর্মূর্তি বজায় রাখার উদ্দেশ্যে হাউজিং এক্সপার্ট ও ইমিগ্রান্ট রাইটস এডভোকেটরা ‘সিটিফেপস’ অর্থ্যাৎ রেন্টাল অ্যাসিস্ট্যান্স সাপ্লিমেন্ট লাভের প্রাপ্যতা বৃদ্ধির পরামর্শ দিয়েছেন, যাতে ভুক্তভোগী ব্যক্তি ও পরিবারগুলো তাদের আবাস খুঁজে নিতে পারে।


কোয়ালিশন বলেছে যে নিউইয়র্কসহ যেসব সিটিতে টেক্সাস থেকে ইমিগ্রান্টদের পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে, সেসব সিটির ইমিগ্রান্টদের সহায়তার জন্য ইতোমধ্যে ফেডারেল সরকারের সহায়তা এসে পৌছেছে। কংগ্রেস এ্ই খাতে ৮০০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করেছে। কিন্তুতা সত্বেও নিউইয়র্ক সিটি মেয়র এমন ভান করছেন যে, নিউইয়র্ক সিটি কোনো পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তা না পেয়ে একাই ইমিগ্রান্টদের ব্যয়ভার বহন করছে। অথচ কংগ্রেস এই অর্থ বিলটি পাস করেছে ২০২২ সালের ডিসেম্বর মাসে। বরাদ্দকৃত অর্থের সিংহভাগই নিউইয়র্কের নবাগত ইমিগ্রান্টদের পেছনে ব্যয়ের জন্য। কিন্তু মেয়র বলছেন যে তিনি যে অর্থ পেয়েছেন তা প্রয়োজনের এক শতাংশেরও কম, যা আদৌ সত্য নয় বলে কোয়ালিশ নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেছেন।
--






আরও খবর


Chief Advisor:
A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf

Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com