শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ৭ আষাঢ় ১৪৩১
শিরোনাম: ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে ঘরমুখো মানুষের স্রোত        আজ পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু        চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটারদের কখনো ছোট করে দেখা উচিত নয়।       আগামী ২১ জুন ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী        নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে সুপার এইটের পথে বাংলাদেশ       ঈদ উপলক্ষ্যে ৮,০০০ আউটলেটে জিপি স্টার গ্রাহকদের জন্য বিশেষ সুবিধা        ঈদের আগমুহুর্তে জমজমাট ওয়ালটন ফ্রিজের বিক্রি      
কনস্টেবল কর্তৃক সহকর্মীকে গুলি করা সেই কনস্টেবল কাওছারের স্ত্রী যা বললেন
প্রকাশ: সোমবার, ১০ জুন, ২০২৪, ৯:৪০ এএম আপডেট: ১০.০৬.২০২৪ ৯:৪৮ এএম |

রাজধানীতে ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে দায়িত্ব পালন অবস্থায় এক পুলিশ কনস্টেবল কর্তৃক সহকর্মীকে গুলি করে হত্যার ঘটনার সঠিক কারণ জানাতে পারেননি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতনরাও। মানসিক সমস্যার কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা তাঁদের।

এ অবস্থায় আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অভিযুক্ত কনস্টেবল কাওছার আলীর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল রবিবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে আসামি কাওছার আলীকে হাজির করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গুলশান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আব্দুল মান্নাফ ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।


পরে শুনানি শেষে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। শুনানিতে কাওছারের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।
গতকাল রবিবার দুপুরে ডিএমপি সদর দপ্তরে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) ড. খ. মহিদ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, ‘অভিযুক্ত কাওছারের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তাতে মনে হয়েছে, কোনো বিষয় নিয়ে তর্কাতর্কির পর তিনি ব্যক্তিগত ক্ষোভ থেকে এমনটি ঘটাতে পারেন।


সাময়িক উত্তেজনার কারণে এমনটি ঘটতে পারে।’
তাঁদের মধ্যে পূর্ববিরোধ ছিল কি না জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, ‘এমন তথ্য আমাদের কাছে নেই। কাওছারের গত এক-দুই মাসের ডিউটির রেকর্ড দেখেছি। কখনো তাঁর মধ্যে মানসিক সমস্যার কারণে সহকর্মীদের আঘাত করার তথ্য মেলেনি।


হয়তো এক-দুদিন গেলে বোঝা যাবে গুলি করার সঠিক কারণ।’
এই ধরনের অপরাধ যাতে সংঘটিত না হয় সে জন্য পুলিশ সদস্যদের কাউন্সেলিং করা হয় কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের আনুষ্ঠানিকভাবে এ রকম কাউন্সেলিং করা হয় না। তবে মাঝেমধ্যে তাঁদের সঙ্গে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বসে এসব বিষয়ে আলোচনা করেন।’

যা বলছেন কাওছারের স্ত্রী : অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল কাওছার আলীর গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের দাড়েরপাড় গ্রামে। বাবার নাম হায়াত আলী।


কাওছারের স্ত্রী নিলুফা ইয়াসমিন স্বামীর বিষয়ে বলেন, আগে থেকেই কাওসারের কিছুটা মানসিক সমস্যা ছিল। এর আগে রাঙামাটির বরকলে চাকরি করার সময় তিনি মানসিক সমস্যায় ভোগেন। এরপর বিভিন্ন সময় সরকারিভাবেই তাঁকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অন্তত তিনবার চিকিৎসা করানো হয়েছিল তাঁকে। নিয়মিত ওষুধও সেবন করতেন।

বিকেল পর্যন্ত মর্গে লাশ : গতকাল বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত নিহত মনিরুলের মরদেহের ময়নাতদন্ত হয়নি। সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গ থেকে নিহতের মামা বেলায়েত হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ও ম্যাজিস্ট্রেট ক্লিয়ারেন্সের জন্য দেরি হচ্ছে। কখন ময়নাতদন্ত শেষ হবে, কখন লাশ নেত্রকোনায় নেওয়া নেব বুঝতে পারছি না।’






আরও খবর


Chief Advisor:
A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf

Head Office: Modern Mansion 9th Floor, 53 Motijheel C/A, Dhaka-1223
News Room: +8802-9573171, 01677-219880, 01859-506614
E-mail :[email protected], [email protected], Web : www.71sangbad.com